Advertisements

Quite elementary, my dear readers !

Today was one of those days which I fear the most. It was a day of unnecessary waiting for a 15 minute appointment with my doctor for a routine checkup. Going to the checkup driving more than an hour is something that is not strenuous, but waiting there for more than 2.5 hours is something... Continue Reading →

Advertisements

L14B

অনেকদিন পর লিখতে গেলে প্রথমে মনে হয় কি নিয়ে লিখি এইবার। কিন্তু হঠাৎ করে যদি আলোচনার বিষয় মাথায় এসে যায় - তাহলে আধ্যেক চাপ কমে যায়। আমার এই চাপটা থাকতো, যদি না সেদিন রাস্তায় কাকে বলতে শুনলাম L14B বাসের কথা বলতে। সঙ্গে সঙ্গে মনে পরে গেল এক ঘটনা - সেটাই লিখছি এখন। L14B বলে একটা... Continue Reading →

Unfair competition

স্কুলের গন্ডি পেরিয়ে কলেজে ঢুকলে মনে হয় যেন রাজ্য জয় করে ফিরছি - তাই না? পাখির পাখনা গজিয়েছে - ইচ্ছা হলে উড়বে, আবার ইচ্ছা না হলে ক্লাসে বসে থাকবে। এ যেন জীবনের রাস্তায় যেতে যেতে প্রথম বড়ো হয়ে ওঠার আস্বাদ পাওয়া - এবং একবার এই স্বাদ পেলে লোকে অন্য কিছু চাই না। এই সময়টা বোধহয়... Continue Reading →

Viva Voce

আবার সেই ইঞ্জিনীরিং পড়ার সময়কার গল্প। পড়াশোনা বাদে সবই করা হচ্ছে ঠিক ঠাক - না, এটা সত্যি কথাটা বলা হল না। ডিপার্টমেন্টাল সাবজেক্ট গুলো তাও পড়াশোনা করতাম - কারণ চার বছর বাদে ডিগ্রীটার মূল্য বোঝা যাবে চাকরির বাজারে। সেই সময় যদি ট্রান্সফরমার এর থ্রী ফেইস না বলতে পারি, তাহলে তো চাকরিটা হবেই না, তার উপরে... Continue Reading →

Kitchen

কলকাতা তে শুভ আসে চাকরির সূত্রে। তাদের আদি বাড়ি জলপাইগুড়ি - কিন্তু দুর্গাপুরে পড়াশোনা করে কলকাতায় আসে সে প্রায় ১২ বছর আগে। প্রথম প্রথম শহরের ধাক্কাটা ভালো লাগেনি - সবাই খুব ব্যস্ত - কেউ ভালোভাবে কথা বলে না, এবং তার চেয়ে বেশি ভয়ঙ্কর হলো গিয়ে যানজট। ঢাকুরিয়াতে বাড়ি ভাড়া করে থাকা - কিন্তু সেই সল্টলেকের... Continue Reading →

প্রকৃতির ডাক !

সেইদিন অবিরাম বৃষ্টি পরে যাচ্ছে। মুষলধারে বৃষ্টি। একদম বর্ষা কালের মাঝে - তাই কেউ যে খুব অবাক হয়ে যাবে, তার কোনো জো নেই। কলকাতায় তখন মেট্রো রেইলের কাজ হচ্ছে। এখনকার কাজ নয় - একদম দেশের প্রথম মেট্রোর কাজ। একে একটু বেশি শিশির পড়লেই রাস্তায় জল জমে যেত - এই খোঁড়াখুঁড়ির মধ্যে প্রচন্ড বর্ষা, তাতে কলকাতা... Continue Reading →

পেট্রল পাম্প

এই পূজার পর আমার এক নিকট আত্মীয়র সঙ্গে দেখা করতে গিয়েছিলাম। মিষ্টি মুখের বদলে একটু নোনতা মুখ করতে করতে এমনি কথা বার্তা হচ্ছিল। কথা হতে হতে ছোটবেলার কথা উঠে এল। মনে রাখবেন যে মাথার চুলে যদি পাঁক ধরাটা দেখতে আর আশ্চর্য না লাগে, তখন পুরনো দিনের কারুর সঙ্গে দেখা হলে বেশির ভাগ সময় ছোটবেলার কথাই... Continue Reading →

বিজয়ার ভালোবাসা জানানোর আগে চিন্তা করে নেবেন প্লিজ …

মনটা ভারাক্রান্ত। হওয়াটাই স্বাভাবিক। সবে মাত্র মা দূর্গা রওনা হয়েছেন শশুড়বাড়ির দিকে এবং তার সঙ্গে এই বছরের দূর্গা পূজা শেষ। তবে আর মাত্র ৩৫০ দিনের অপেক্ষা পরের পূজার জন্য। বাঙালি তার প্রথা অনুযায়ী বিজয়ার আদান প্রদানে এখন ব্যস্ত আত্মীয়স্বজনের সঙ্গে, বন্ধুবান্ধবের সঙ্গে। চলছে কোলাকুলি, চলছে মিষ্টি মুখ - তারই মধ্যে বৌয়েরা কটমট করে তাকিয়ে থাকছে... Continue Reading →

কপালের নাম গোপাল !!

বাংলায় একটা প্রচলিত কথা আছে - চাঁচা, আপন প্রাণ বাঁচা ! খুবই দামি কথা এবং আমি সেটা মনে প্রাণে উপলব্ধি করি। সেই জন্য চলচিত্রের শুরুতে যেমন একটা লেখা দ্রুত বয়ে যায়, সেই ভাবেই প্রথমেই বলে রাখি যে এই গল্পের সব চরিত্র কাল্পনিক - এদের সঙ্গে জীবিত কারুর মিল খোঁজার চেয়ে আপনি হয় হোয়াটস্যাপ এ অন্যের... Continue Reading →

Up ↑

%d bloggers like this: